৪০ জন মাঠকর্মীকে নিয়ে রাতের খাবার খেয়ে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় উদযাপন তামিমের

অবশেষে গতকাল নিউজিল্যান্ডের মাটিতে ইতিহাস রচনা করেছে বাংলাদেশ। যেটি বিগত ১০ বছরের মধ্যে করতে পারেনি এশিয়ার আর কোন দল। প্রথমবারের মতো নিউজিল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট ম্যাচে জয়লাভ করেছে বাংলাদেশ। তবে এই বিজয় বাংলাদেশের জন্য একটু আলাদা।

বর্তমান বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের বিপক্ষে পাঁচ দিনই আধিপত্য বিস্তার করেছিল বাংলাদেশ। প্রতিটি মুহুর্ত-প্রতিটি দিনেই নিউজিল্যান্ডের থেকে এগিয়ে ছিল টাইগাররা। নিউ জিল্যান্ডকে প্রথমবারের মতো হারানোয় ক্রিকেটাঙ্গনে বিরাজ করছে উৎসব। তবে নিউজিল্যান্ডের এ মাটিতে এই জয়কে স্মরণীয় করে রাখলেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

এদিকে ইনজুরিতে না থাকলে হয়তো এই ইতিহাসের সাক্ষী হতে তিনি। তবে এই জয়কে স্মরণীয় করে রাখতে গতকাল বুধবার রাতে শের-ই বাংলার ৪০ জন মাঠ-কর্মীদের নিয়ে খাবার খেয়েছেন তামিম। বাকিটা পড়ুন তামিমের ভাষাতেই। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তা প্রকাশ করেছেন তামিম ইকবাল।

এতে তামিম বলেন, “বাংলাদেশ ক্রিকেটের আজকে স্মরণীয় একটি দিন। টেস্টের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের আমরা হারিয়ে দিয়েছি তাদের মাঠেই। দেশের ক্রিকেটে এমন দিন খুব কমই পেয়েছি আমরা। আমাদের দল যেমন সেখানে উচ্ছ্বাস-উল্লাসে উদযাপন করেছে, দেশেও সবাই নিজেদের মতো করে উদযাপন করছি। আমি উদযাপনের জন্য বেছে নিয়েছি এমন মানুষদের, যারা বাংলাদেশ ক্রিকেটের আনসাং হিরো।”

ছবিতে যাদের দেখছেন, তারা সবাই মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামের মাঠকর্মী। আজকে উদযাপনে আমার সঙ্গী ছিলেন তাদের ৪০ জন। আমরা একসঙ্গে ডিনার করেছি, মজা করেছি, আনন্দময় সময় কাটিয়েছি। আজকের জয়কে পরিপূর্ণভাবে উপভোগ করার চেষ্টা করেছি। অনেকে ভাবতে পারেন, আমরা ম্যাচ জিতলাম নিউ জিল্যান্ডে, এখানে মিরপুরের মাঠকর্মীদের ভূমিকা কী! কিন্তু আমরা যারা ক্রিকেটার, তারা জানি, কতটা কষ্ট এই মানুষগুলি করেন। রোদ-বৃষ্টি-ঝড়ে বছরজুড়ে তারা আমাদের প্রস্তুতির জন্য কাজ করে যান।

আমরা যখন নেটে ঘাম ঝরাই, আড়ালে থেকে আরও বেশি ঘাম ঝরিয়ে যান এই মানুষগুলি। পরিবার-পরিজন ছেড়ে তারা দিনের পর দিন মাঠে পড়ে থাকেন এবং অক্লান্ত পরিশ্রম করেন যেন আমাদের প্রস্তুতিতে কোনো ঘাটতি না থাকে। আমরা যখন এবং যেভাবে চাই, তারা উইকেট ও মাঠ প্রস্তুত রাখেন। আমাদের যে কোনো সাফল্যের ভাগীদার তারাও। সবাই ভালো থাকবেন। সুসময় ও দুঃসময়ে দলের পাশে থাকবেন এবং এই মানুষগুলির জন্য ও বাংলাদেশ ক্রিকটের জন্য দোয়া করবেন। সবার জন্য শুভ কামনা।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*