ছেলে ও দলের জন্য নামাজ পড়ে দোয়া করেছি: এবাদতের মা

নিউজিল্যান্ডের মাটিতে প্রথমবারের মত জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ দল। প্রথম টেস্টে কিউইদের ৮ উইকেটে হারিয়ে টাইগাররা। কিউইদের মাটিতে এটাই যেকোনো ফরম্যাটে টাইগারদের প্রথম জয়।

টাইগারদের ঐতিহাসিক জয়ের নায়ক এবাদত হোসেন চৌধুরী। দ্বিতীয় ইনিংসে কিউইদের ৬ উইকেট তুলে নেন তিনি। দেশের পাশাপাশি বিশ্ব মিডিয়ায় প্রশংসায় ভাসছেন এই টাইগার পেসার।

এমনকি এবাদতের গ্রামের বাড়ি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার দক্ষিণভাগ উত্তর ইউপির কাঁঠালতলীতে বইছে আনন্দের ঢল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এবাদতের এমন অবদানে তার পরিবার দারুণ খুশি।

এবাদতের বাবা নিজাম উদ্দিন চৌধুরী ও মা সামিয়া বেগম চৌধুরী বলেন, লেখাপড়ার পাশাপাশি ছোটবেলা থেকেই ওর খেলার প্রতি আলাদা একটা টান ছিল। সে সারাদিন ক্রিকেট খেলত। তার স্বপ্ন ছিল কোনো একদিন জাতীয় দলের হয়ে খেলে দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে। আজ ছেলের স্বপ্ন পূরণ হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বাংলাদেশকে জিতিয়ে সে দেশের মুখ উজ্জ্বল করেছে। আমাদের ছেলের এমন পারফরম্যান্সে আমরাও খুশি, এলাকার মানুষও খুশি। আমরা তার সব খেলা দেখেছি। নামাজ পড়ে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের জন্য দোয়া করেছি। সকালে এবাদতের সঙ্গে ফোনে আমাদের কথা হয়েছে, সে খুব খুশি।

উল্লেখ্য, এবাদত এসএসসি পাস করে ২০০৮ সালে সৈনিক পদে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীতে যোগ দেন। বিমানবাহিনীতে নিয়মিত ভলিবল খেলতেন তিনি। এরপর ২০১৬ সালে রবি পেসার হান্টের শেষ রাউন্ডে ১৩৯.০৯ কিলোমিটার গতিতে বল করে চমকে দেন এবাদত। ২০০৯ সালে জাতীয় দলে অভিষেক হয় তার।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*