মাঝ আকাশে করোনা শনাক্ত, উড়োজাহাজের টয়লেটে কোয়ারেন্টিনে নারী

শিকাগো থেকে আইসল্যান্ডে যাওয়ার পথে মাঝ আকাশে এক নারীর করোনা শনাক্ত হওয়ায় তাকে উড়োজাহাজের টয়লেটে ৩ ঘণ্টা আটকে রাখা হয়।

শুক্রবার মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন এ তথ্য জানিয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ঘটনাটি ঘটেছে গত ১৯ ডিসেম্বর। উড়োজাহাজ যাত্রী মারিসা ফোটিও তার বাবা ও ভাইয়ের সঙ্গে শিকাগো থেকে আইসল্যান্ড হয়ে সুইজারল্যান্ডে যাচ্ছিলেন।

উড়োজাহাজে ওঠার আগে তিনি ২ বার পিসিআর ও ৫ বার র‌্যাপিড টেস্ট করান। প্রতিবারই তার করোনা নেগেটিভ আসে। কিন্তু, ফ্লাইট শুরুর দেড় ঘণ্টা আগে তার গলায় সমস্যা হয়।

মারিসার ২ ডোজ টিকা নেওয়ার পাশাপাশি বুস্টার ডোজও দেওয়া আছে। এরপর উড়োজাহাজ যখন আটলান্টিকের ওপর মাঝ আকাশে তখন পরীক্ষা করানো হলে পজিটিভ আসে।

তিনি সিএনএনকে বলেন, ‘এই সংবাদ পেয়ে আমি আতঙ্কিত হই। কাঁদতে শুরু করি। আমার পরিবারের সদস্যদের জন্য দুশ্চিন্তা হয়। উড়োজাহাজের অন্যদের জন্যও দুশ্চিন্তা হয়।’

ফ্লাইট অ্যাটেনডেন্ট রকি সংবাদমাধ্যমটিকে বলেন, ‘এটা আসলেই দুশ্চিন্তার বিষয়। তবে তা আমাদের কাজেরই অংশ।’

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, উড়োজাহাজের সব আসনে যাত্রী থাকায় মারিসাকে আলাদা করে রাখার সুযোগ ছিল না। তাই কোয়ারেন্টিন হিসেবে তাকে টয়লেটে আটকে রাখা হয়েছিল।

আর সেসময় টয়লেটের দরজায় লিখে রাখা হয়, ‘এটি ব্যবহারযোগ্য নয়।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*