৫৮ বছর বয়সে এসএসসি পাশ করে চমক দেখালেন মেম্বার

ফুলবাড়িয়ায় ইউনিয়ন পরিষদের নব-নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিদের শপথ অনুষ্ঠান চলাকালে এসএসসি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়। শপথ অনুষ্ঠানে নব-নির্বাচিত ইউপি সদস্য শারীরিক প্রতিবন্ধী মো. রফিকুল ইসলাম খবর পান তিনি এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৪.৪৬ পেয়ে পাস করেছেন।

ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়া উপজেলার ভবানীপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম। দ্বিতীয়বারের মতো নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। তবে এবার তিনি আলোচনায় এসএসসি পরীক্ষায় কৃতিত্বের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়ে। শারীরিক অসুস্থতায় অষ্টম শ্রেণির পর আর পড়তে পারেননি রফিক। বয়স আর চক্ষুলজ্জাকে পাত্তা না দিয়ে এবার এসএসসি পাশ করেছেন তিনি। ৫৮ বছর বয়সী এই ইউপি সদস্যের এমন সাফল্যে খুশি স্ত্রী সন্তানসহ গ্রামবাসী।

ইউপি সদস্য রফিকুল ইসলাম জানান, নিজে শিক্ষিত না হলে শিক্ষার গুরুত্ব দেওয়া সম্ভব নয়। তাইতো ৫৮ বছর বয়সে সন্তানের সঙ্গে ফিরেছেন পড়ার টেবিলে।এ বিষয়ে তার সন্তান আব্দুল্লাহ আল মারুফ বলেন, আমার খুবই আনন্দ হচ্ছে যে আমার বাবা পরীক্ষায় পাশ করেছেন।রফিকুল ইসলামের স্ত্রী আমেনা খাতুন বলেন, আমার স্বামীর অনেক দিনের ইচ্ছে ছিল ম্যাট্রিক পাশ করবে। আজ তার সেই ইচ্ছা পূরণ হয়েছে।

রফিকুল ইসলামের শিক্ষক আবুল কালাম জানান, উনি আমাদের বললেন অনেকেই তো আইএ, বিএ পাশ করে। আমরা তো পড়ালেখা না করে ভুল করেছি। এখন কি কোনো সুযোগ আছে লেখাপড়ার? তখন আমরা তাকে পুনরায় লেখাপড়া করার ব্যবস্থা করে দেই। তার আগ্রহকে আমরা কাজে লাগাই। কারণ লেখা পড়ার কোন বয়স নেই। তবে এজন্য তাকে সইতে হয়েছে গ্রামবাসীর অনেক টিপ্পনী। এবার তার পাশের খবরে তারাই জানাচ্ছেন অভিনন্দন।

কেন এই বয়সে ফিরলেন বিদ্যালয়ে? এই প্রশ্নে জবাবে রফিকুল ইসলাম জানান, ৫ বছর যাবত মেম্বার থাকার পর আমি বুঝতে পারি জীবনে শিক্ষার প্রয়োজন আছে। নিজেই যদি শিক্ষিত না হই তাহলে মানুষের সেবাই বা করবো কীভাবে? জনগণকে কী শেখাবো? আমি যদি একটা শিশুকে স্কুলে যেতে বলি সে তো আমার কথা শুনবে না। এছাড়াও অফিস-আদালতে শিক্ষা সবসময়ই প্রয়োজন হয়।

নতুন প্রজন্মের কাছে এখন তিনি উদাহরণ; শিক্ষার আলো ছড়াতে চান ঘরে ঘরে। এসএসসির পর এবার কলেজে ভর্তি হতে যাচ্ছেন রফিকুল ইসলাম।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আশরাফুল ছিদ্দিক বলেন, ‘প্রকৃতপক্ষে শিক্ষার কোনো বয়স নেই। প্রতিবন্ধী হয়ে যে বয়সে তিনি এসএসসি পাশ করেছেন। এটা আনন্দের সংবাদ। শপথ অনুষ্ঠানে এসএসসি পাসের খবর তাঁর জীবনে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*