ভোট যুদ্ধে একই পরিবারের দুই বধূ

ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) পঞ্চম দফার নির্বাচনে একই এলাকার সরক্ষিত নারী সদস্য পদে ভোট যুদ্ধে নেমেছেন আপন দুই জা। সিরাজগঞ্জের তাড়াশ উপজেলার দেশীগ্রামের একই পরিবারের দুই বধূ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী হওয়ায় জমে উঠেছে নির্বাচন।

এলাবাসীর মুখে মুখে এখন দুই জায়ের ভোট যুদ্ধের কথা। তাড়াশ উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, উপজেলার দেশীগ্রাম ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর সাধারণ ওয়ার্ড নিয়ে সংরক্ষিত ৩ নম্বর ওয়ার্ড। এখানে ভোটার সংখ্যা ০৫ হাজার ৫৫৯ জন। এখানে বর্তমান ইউপি সদস্য কৃষ্ণপুর গ্রামের বিকাশ চন্দ্র সাহার স্ত্রী শ্রীমতি কনিকা রাণী সাহা মাইক প্রতীকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়াও তার দেবর বিমান চন্দ্র সাহার স্ত্রী শ্রীমতি সাধনা রাণী সাথীও হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে প্রথম বারের মতো প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া এ ওয়ার্ডে আরও দুই প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে রয়েছেন। এরা হলেন- মোছা. রহিমা খাতুন (কলম) ও মোছা. মেঘনা আক্তার (সূর্যমুখী ফুল)।

স্থানীয়রা জানান, দুই জায়ের ভোট যুদ্ধ বেশ জমে উঠেছে। তারা একই বাড়ির পুত্রবধূ হওয়া সত্বেও নির্বাচনী প্রচারণায় একে অন্যের সমালোচনাও করছেন। দু’জনই ভোটের মাঠে নিজেদের তুলে ধরছেন আলাদা আলাদাভাবে। সব মিলিয়ে দু’জায়ের নির্বাচনী লড়াই দারুণভাবে উপভোগ করছে এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে বড় জা বর্তমান ইউপি সদস্য শ্রীমতি কনিকা রাণী বলেন, এ ওয়ার্ডের মানুষ আমাকে ভালোবেসে দু’বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত করেছে। আমি জনগণের জন্য কাজ করেছি, তাদের পাশে থেকেছি। এ কারণে আবারও নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। আমি ভোটের আগে থেকেই গণসংযোগ করে আসছিলাম। কিন্তু আমার ছোট জা প্রতিহিংসাবশত আমার বিরুদ্ধে নির্বাচন করছেন। কিন্তু এবারও জনগণ আমার পাশে রয়েছে। আশা করি, ০৫ জানুয়ারির নির্বাচনে ওয়ার্ডবাসী আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবে।

ছোট জা শ্রীমতি সাধনা রাণী (সাথী) বলেন, রাজনীতিতে কোনো আত্মীয়-স্বজন নেই। কোণো প্রতিহিংসা নয়। জনগণের সমর্থন নিয়েই আমি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছি। ওয়ার্ডবাসী আমাকে নির্বাচিত করলে আমি পাশে থেকে তাদের সেবা করবো।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*